এই সমস্ত কর্মকাণ্ড ফেসবুকে করলে ডেকে আনতে পারে বিপদ

ফেসবুক নামক প্ল্যাটফর্মটিতে প্রতিনিয়তই আকস্মিক নানা রকমের ঘটনা ঘটে যাচ্ছে। এছাড়াও ফেসবুকের মাধ্যমে সংগঠিত হচ্ছে নানা রকমের অপরাধ।

অনেকেই প্ল্যাটফর্মটিতে বেছে নিয়েছেন তাদের অপরাধ করার একমাত্র হাতিয়ার হিসেবে। তবে এই সমস্ত বিষয় বস্তু থেকে আপনি যদি বেঁচে থাকতে চান, তাহলে ফেসবুকে যে সমস্ত কাজগুলো কখনোই করবেনা, সে সমস্ত কাজগুলো সম্পর্কে জানা দরকার।

কারণ ফেসবুকের মাধ্যমে আপনি যদি যে কোনো রকমের কার্য সম্পাদন করে দেন, তাহলে এই সমস্ত কাজগুলো আপনার বিপদ ডেকে আনতে পারে। কি সেই সমস্ত কাজগুলো? যে কাজগুলো ফেসবুকে করা উচিত নয়?

যে সমস্ত কাজগুলো ফেসবুকের মাধ্যমে সম্পাদন করা উচিত নয়, সে সমস্ত কাজগুলো সম্পর্কে আজকের এই আর্টিকেলের আলোচনা করা হবে। যা একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী হিসেবে আপনার জানা প্রয়োজন।

মাত্রাতিরিক্ত রিকোয়েস্ট পাঠানো

ফেসবুকে আপনি যদি মাত্রাতিরিক্ত ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট, গ্রুপ এড রিকুয়েস্ট, কিংবা অন্য যে কোনো রকমের রিকুয়েস্ট পাঠাতে থাকেন, তাহলে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ আপনার অ্যাকাউন্ট ব্লক করে দিতে পারে।

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা ফেসবুকে প্রবেশ করার পর কোনো কিছু না ভেবেই শুধুমাত্র ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট, গ্রুপে এড রিকুয়েস্ট, মেসেজ রিকুয়েস্ট ইত্যাদি পাঠাতে থাকেন।

আর আপনি যদি প্রতিনিয়ত এই কাজটি করতে থাকেন তাহলে ফেসবুক আপনাকে টেম্পোরারি ব্লক করে দিতে পারে। তাতে করে এই ফিচারগুলো আপনি কিছু দিনের জন্য ব্যবহার করার সুযোগ সুবিধা পাবেননা ।

তাই সব সময় চেষ্টা করুন ফেসবুকে অযাচিত ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট কিংবা যে কোনো রকমের রিকোয়েস্ট পাঠানো থেকে বিরত থাকা আর যদি পাঠিয়ে থাকেন তাহলে সেটি একটি লিমিটেশন এর মধ্যে পাঠানো।

হ্যাকিং এর হুমকি

ফেসবুকে আপনি যদি কারো আইডি হ্যাক করার হুমকি দিয়ে থাকেন তাহলে এই একটি হুমকি আপনার জীবনে কালো অধ্যায়ের সূচনা করতে পারে।

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা হ্যাকিং সম্পর্কে কোন রকমে ধারণা রাখেন না, কিন্তু শো অফ করার জন্য যে কাউকে এরকম হুমকি দিয়ে দেয় যে আমি আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে দেবো।

এই একই বিষয় ঠিক তখনই ইফেক্ট করে যখন অন্য কেউ ওই ব্যক্তির ফেসবুক একাউন্ট হ্যাক করে নিয়ে যায় কিন্তু আপনি ভুক্তভোগী হয়ে যান; বলাবাহুল্য এই সমস্ত ঘটনা অহরহ ঘটছে।

আপনি যদি কাউকে ফেসবুকে তার আইডি হ্যাক করার হুমকি দিয়ে থাকেন তাহলে এই একটি হুমকি আপনাকে জেলের ভাত খাওয়াতে পারে; তাই খাল কেটে কুমির আনা থেকে বিরত থাকুন।

সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড

ফেসবুকের মধ্যে এরকম অনেক গ্রুপ কিংবা পেইজ দেখতে পারবেন যে সমস্ত গ্রুপ কিংবা পেইজগুলোতে প্রতিনিয়ত ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালানো হচ্ছে।

এই সমস্ত পেইজ এবং গ্রুপের ভাষ্যমতে, আপনি চাইলে তাদের পেইজ এবং গ্রুপ থেকে বিভিন্ন রকমের ইলিগাল অস্ত্র শস্ত্র কিংবা অন্যান্য ইলিগ্যাল জিনিসপত্র ক্রয় করতে পারেন।

আর আপনি যদি এই সমস্ত গ্রুপগুলোতে জয়েন করেন এবং তারপরে এই সমস্ত গ্রুপগুলোকে এই কাজগুলো খুব সম্পাদন করার ইচ্ছা পোষণ করেন, তাহলে আপনি বিপদে পড়তে পারেন।

কারণ সর্বাপেক্ষা এই সমস্ত গ্রুপগুলোকে গোয়েন্দা নজরদারিতে থাকে এবং যেকোন সময় এই সমস্ত গ্রুপগুলোর বিরুদ্ধে অ্যাকশন নেওয়া হতে পারে। তাই সমস্ত গ্রুপগুলোর সাথে আপনার যদি কোন সামঞ্জস্যপূর্ণ থাকে তাহলে আপনিও এই সমস্ত বিপদের মধ্যে সম্মুখীন হতে পারেন।

কারো সাথে ঝগড়া বিবাদ

অনেকেই মনে করেন ফেসবুক শুধুমাত্র একটি ভার্চুয়াল প্লাটফর্ম। এবং এই প্লাটফর্মে করা বিষয় গুলো আমাদের বাস্তব জীবনে কোনো রকমের প্রভাব ফেলতে পারবেনা।

তবে আপনার ধ্যান-ধারণা ও যদি এরকম হয়ে থাকে ফেসবুকে একটি ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্ম, এবং এই প্ল্যাটফর্মটির কোন বিষয় বাস্তবিক কোন বিষয়াদিতে এফেক্ট করবে না তাহলে এই ধারনাটি সম্পুর্ন ভুল।

আপনি যদি সংবাদপত্র গুলোর দিকে লক্ষ্য করেন তাহলে দেখতে পারবেন ফেসবুকে মধ্যে করা বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের কারণে অনেকেই বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হয়েছে।

এবার আপনিও যদি ফেসবুকে কারো সাথে ঝগড়া বিবাদ করে থাকেন কিংবা অন্য কোনো সমস্যা করে থাকেন বা করার চিন্তা ভাবনা করেন; তাহলে এগুলো আপনার রিয়াল লাইফে ইফেক্ট করতে পারে।

তাই সব সময় চেষ্টা করুন ফেসবুকের মতো প্লাটফর্মে নিজেকে একজন ভালো ব্যক্তি হিসেবে প্রকাশ করানো। এছাড়াও কারো সাথে ঝগড়া বিবাদে জড়িয়ে যাওয়ার মতো ঘটনা থেকে বিরত থাকা।

কারণ আপনি আজকে যার সাথে ঝগড়া করেছেন, হতে পারে আজ থেকে কয়েক মাস কিংবা বছর পরে ওই ব্যক্তির সাথে আপনার দেখা হয়ে যেতে পারে, তারপরে ঝগড়ার ফলপ্রসূ হতে পারে তা নিশ্চয়ই আপনার অজানা নয়।

সেবা দেয়ার নামে প্রতারণা

ফেসবুকে আপনি কি কোনদিন কারো কাছ থেকে সেবা দেয়ার নামে প্রতারণার শিকার হয়েছেন? আপনি এ সমস্ত প্রতারণার শিকার না হলেও, আমি ব্যক্তিগতভাবে এই সমস্ত প্রতারণার শিকার হয়েছি।

এরকম অনেকেই আছেন যারা সেবা দেয়ার নামে প্রতারণা করে থাকে অর্থাৎ নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ কালেক্ট করে নেওয়ার পরে সেবা দেয়া থেকে বিরত থাকেন।

আর আপনি যদি ফেসবুকের এরকম সেবা দেয়ার নামে প্রতারণার কাজে সম্পৃক্ত হয়ে যান, তাহলেই কাজ গুলো থেকে সরে আসুন কারণ এ সমস্ত কাজগুলো বিপদ ডেকে আনতে পারে।

আপত্তিকর ছবিতে কাউকে ট্যাগ অথবা মেনশন করা

কাউকে ট্যাগ বা মেনশন করার মূল অর্থই হল আপনি যে কোন একটি আর্টিকেল ওই ব্যক্তিকে সম্পৃক্ত করে ফেললেন। আমরা যে কোনো রকমের ছবিতে কাউকে ট্যাগ করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি।

ফেসবুকে পাবলিশ করা কোন একটি স্ট্যাটাস এর মধ্যে আপনি যদি অনেক জন ব্যক্তিকে ট্যাগ করে দেন, যে সমস্ত ব্যক্তিবর্গরা ওই ছবির সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয় তাহলে এই ব্যাপারটি মোটেও ভালো নয়।

তাই সব সময় চেষ্টা করুন ফেসবুকে যখনই আপনি কোন স্ট্যাটাস পাবলিশ করবেন সেই সমস্ত স্ট্যাটাস গুলো তে অসামঞ্জস্যপূর্ণ ট্যাগ দেয়া থেকে বিরত থাকা।

Share on:

Leave a Comment

error: Content is protected !!