নাম ডিজাইন করার নিয়ম জেনে নিন

বিভিন্ন রকমের গেম / সোসিয়াল গণমাধ্যমে ব্যবহার করার জন্য কিংবা বন্ধুদের সাথে ভাব নেওয়ার জন্য অনেক সময় আমাদের নাম ডিজাইন করার কাজ সম্পন্ন করতে হয়।

কিভাবে আপনি চাইলে খুব সহজেই নাম ডিজাইন করতে পারবেন? সেই রিলেটেড বিস্তারিত তথ্য আজকের এই আর্টিকেলে আলোচনা করা হবে।

নাম ডিজাইন কিভাবে করবেন

নাম ডিজাইন করার একটি অভিনব পদ্ধতি হল, বিভিন্ন রকমের ফ্রন্ট এর সহায়তায় নতুন একটি নাম তৈরি করে নেয়া।

অর্থাৎ এরকম অনেক ফন্ট রয়েছে, যে সমস্ত ফন্ট আপনার নামকে ডিজাইন করে নিতে সহায়তা করবে।

আর এ কাজটি আপনি চাইলে বিভিন্ন রকমের থার্ড পার্টি ওয়েবসাইট এর সহায়তায় করে নিতে পারবেন।

নাম ডিজাইন করে নেয়ার জন্য যে সমস্ত ওয়েবসাইট আপনি চাইলে ব্যবহার করে নিতে পারেন, সেগুলোর মধ্য থেকে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য এবং কার্যকরী একটি ওয়েবসাইটের লিঙ্ক নিচে তুলে ধরা হলো।

Website Link

উপরে উল্লিখিত লিংকে যখনই আপনি ভিজিট করবেন, তখন নিম্নলিখিত স্ক্রীনশট এর মত একটি পেইজ দেখতে পারবেন।

এবার এখানে থাকা একদম উপরের বক্স পাবেন, যেখানে আপনি চাইলে যেকোন টেক্সট টাইপ করতে পারেন বা আপনার পছন্দের একটি নাম বসিয়ে দিন কিংবা আপনার নামটি বসিয়ে দিন।

নাম ডিজাইন করার নিয়ম জেনে নিন

যখনই আপনি এখানে নাম বসিয়ে দেয়ার পরই ইন্টার বাটনে প্রেস করবেন কিংবা কন্টিনুয়ে বাটনে প্রেস করবেন, তখন এই রিলেটেড প্রত্যেকটি নামের ডিজাইন চলে আসবে।

অর্থাৎ, আপনি এখানে যে সমস্ত জিনিস লিখবেন সে সমস্ত জিনিস এর একটি অসাধারণ লুকিং আপনি দেখতে পারবেন।

এবার আপনি যখনই পেইজটিকে একটু নিচের দিকে স্ক্রল করবেন, তখন ডিজাইন করা প্রত্যেকটি জিনিস দেখতে পারবেন।

এবার এখান থেকে একটি নাম পছন্দ করে নিন এবং তারপরে সে নামটির উপরে ক্লিক করুন, তাহলেই আপনার পছন্দের নামটি কপি হয়ে যাবে।

নাম ডিজাইন করার নিয়ম জেনে নিন

যখনই নামটি কপি হয়ে যাবে, তখন আপনি চাইলেই নাম টিকে যেকোন প্লাটফর্মে ফ্রিতে ব্যবহার করতে পারেন। ব্যবহার করার জন্য শুধুমাত্র পেস্ট করে দিলেই সেটি আপনার একাউন্টে সম্পৃক্ত হয়ে যাবে।

ডিজাইন কি কাজে ব্যবহার করা যাবে?

উপরি উল্লিখিত টুলসটি ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনি যে সমস্ত নাম তৈরি করবেন, সেই নামগুলো যেকোনো রকম সোসিয়াল গনমাধ্যমে ব্যবহার করতে পারবেন।

বিশেষ করে আপনি যদি ফেসবুকে কোন রকমের স্টাইলিশ নাম ব্যবহার করতে চান, তাহলে উপরে উল্লেখিত নামগুলো কপি করে নিয়ে ব্যবহার করে নিতে পারবেন।

তবে অনেক ক্ষেত্রে দেখা যাবে এই সমস্ত নামগুলো সেভ হবে না। সে ক্ষেত্রে, ভিপিএন ব্যবহার করার মাধ্যমে নাম গুলো সেভ করে নেয়ার চেষ্টা করতে হবে।

এসমস্ত নামগুলো ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনি যদি ফেসবুকে অ্যাকাউন্ট তৈরি করেন, তাহলে অনেক সময় আপনার ফেইসবুক একাউন্ট টেম্পোরারি ডিজেবল কিংবা পুরোপুরি পার্মানেন্টলি ডিজেবল হয়ে যেতে পারে।

সেক্ষেত্রে, এইসমস্ত নামগুলো বিভিন্ন রকমের গেইমের প্রোফাইল কিংবা অন্যান্য যেকোন রকমের টেম্পোরারি জিনিসের ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারেন। যেগুলো ডিজেবল হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

আরো কিছু নাম ডিজাইন টুলস

এছাড়াও যেকোন রকমের টেক্সট ডিজাইন করে নেয়ার জন্য আরো যে সমস্ত টুলস ব্যবহার করে নেয়া যেতে পারে, সেগুলোর লিঙ্ক নিচে তুলে ধরা হলো।

উপরে যে সমস্ত ওয়েবসাইটের কথা মেনশন করা হয়েছে, সে সমস্ত ওয়েবসাইটে ভিজিট করে তারপরে একটি টেক্সট বক্সে টেক্সট লিখে দিলে সেটি ডিজাইন হয়ে যাবে।

এছাড়াও সবচেয়ে ভালো ব্যাপার হলো, এই সমস্ত টুলসগুলো একদম ফ্রি। যার কারণে কোনো রকমে টাকা-পয়সা খরচ করা ছাড়াই, যে কোন টেক্সট ডিজাইন করে নিতে পারবেন।

তাহলে আর দেরি না করে এখুনি উপরে উল্লেখিত উপায়ে যেকোনো একটি টুলস ব্যবহার করার মাধ্যমে টেক্সট ডিজাইন করে নিন এবং তারপরে এটি আপনার প্রয়োজনীয় কাজে ব্যবহার করুন।

Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap